Breaking News
Home / Sports / ঢাকায় ওয়েস্ট ইন্ডিজ, অনুশীলন শুরু বাংলাদেশের

ঢাকায় ওয়েস্ট ইন্ডিজ, অনুশীলন শুরু বাংলাদেশের

 

তিন ওয়ানডে ও দুই টেস্টের সিরিজ খেলতে বাংলাদেশে এসেছে ওয়েস্ট ইন্ডিজ ক্রিকেট দল। আজ সকাল সাড়ে ১০টায় ঢাকায় পৌঁছে ক্যারিবীয় দল। ওয়েস্ট ইন্ডিজের বিপক্ষে সিরিজ দিয়েই করোনার লম্বা বিরতির পর আন্তর্জাতিক ক্রিকেটে ফেরার অপেক্ষার ইতি ঘটবে বাংলাদেশ দলের। গত মার্চে জিম্বাবুয়ের বিপক্ষে সবশেষ আন্তর্জাতিক ক্রিকেট খেলেছে বাংলাদেশ। এরপর করোনার পর গোটা পৃথিবীতেই ক্রিকেট বন্ধ হয়ে গিয়েছিল। তবে গত জুলাইয়ে ইংল্যান্ড-ওয়েস্ট ইন্ডিজ সিরিজ দিয়ে আবারও শুরু হয় ক্রিকেট। এরপর একে একে প্রায় সব টেস্ট খেলুড়ে দেশই আন্তর্জাতিক ক্রিকেটে ফিরলেও বাংলাদেশের অপেক্ষাটা দীর্ঘই হচ্ছিল। গত অক্টোবর-নভেম্বরে শ্রীলঙ্কার বিপক্ষে তাদের মাটিতেই টেস্ট সিরিজ খেলার কথা থাকলেও কোয়ারেন্টিন-সংক্রান্ত জটিলতায় সেটি স্থগিত হয়ে যায়।

বিজ্ঞাপন বাংলাদেশে ক্রিকেটটা ফিরেছিল অবশ্য আগেই। বিসিবি প্রেসিডেন্টস কাপ দিয়ে অক্টোবরেই ক্রিকেট ফেরে। এরপর নভেম্বরে অনুষ্ঠিত হয়ে বঙ্গবন্ধু টি-টোয়েন্টি কাপ। বিসিবি এ দুটি টুর্নামেন্ট দিয়ে করোনাকালে ক্রিকেট আয়োজনের প্রস্তুতিটা নিয়েছে। এবার ওয়েস্ট ইন্ডিজ সিরিজ দিয়ে আন্তর্জাতিক ক্রিকেটে সেই প্রস্তুতির প্রয়োগ দেখা যাবে। টেস্ট ও ওয়ানডে দলের খেলোয়াড়, কোচিং স্টাফসহ প্রায় ৪০ জনের বহর নিয়ে এসেছে ওয়েস্ট ইন্ডিজ দল। বিমানবন্দর থেকে ক্যারিবীয় দলকে বিশেষ ব্যবস্থায় হোটেল সোনারগাঁওয়ের জৈব সুরক্ষাবলয়ে নেওয়া হবে। প্রথম তিন দিন হোটেল কক্ষের বাইরে যেতে পারবেন না কেউই। তিন দিনে দুবার হবে করোনা পরীক্ষা।

দুটি পরীক্ষায় নেগেটিভ হলে তৃতীয় দিন অনুশীলনে যেতে পারবেন সফরকারীরা। তবে অনুশীলন করতে হবে নিজেদের মধ্যে সীমিত পরিসরে। পুরোদমে অনুশীলনের জন্য ক্যারিবীয়দের অপেক্ষা করতে হবে আরও চার দিন। পুরো প্রক্রিয়াটি নির্ঝঞ্ঝাটভাবে হোক, এটাই এখন বিসিবির প্রত্যাশা। কাল বিসিবির ক্রিকেট পরিচালনা বিভাগের প্রধান আকরাম খান বলছিলেন, ‘আমরা বিষয়টা খুব গুরুত্বসহকারে নিচ্ছি। গত দুটি সফল টুর্নামেন্টের মতো এটাও আশা করি সফলভাবে শেষ করতে পারব।’ বাংলাদেশে থাকার সময় ওয়েস্ট ইন্ডিজ দলের কেউ করোনা পজিটিভ হলে তাঁর জন্যও আছে আলাদা ব্যবস্থা।

বিসিবির চিকিৎসক দেবাশিস চৌধুরী জানিয়েছেন, সফরকারী দলের কারও করোনার লক্ষণ দেখা দিলে প্রথমে আইসোলেশনে রাখা হবে। পজিটিভ হওয়ার পরও যদি খুব বেশি সমস্যা না থাকে, তাহলেও সেই ক্রিকেটারকে আইসোলেশনেই রাখা হবে। তবে প্রয়োজনে হাসপাতালে নেওয়া হবে। ঢাকা ও চট্টগ্রামে সে রকম দুটি হাসপাতাল ঠিক করে রেখেছে বিসিবি। এদিকে আজই মিরপুর শেরেবাংলা স্টেডিয়ামে শুরু হয়েছে বাংলাদেশ দলের প্রস্তুতি ক্যাম্প। নতুন ব্যাটিং পরামর্শক জন লুইস ছাড়া জাতীয় দলের সব কোচই ক্যাম্পে যোগ দিয়েছেন।বাংলাদেশ সরকারের নিয়ম অনুযায়ী ঢাকায় এসে লুইসকে ১৪ দিনের কোয়ারেন্টিনে থাকতে হবে।

বিসিবি চাইছে করোনা পরীক্ষায় দুবার নেগেটিভ হলেই তাঁকে ক্যাম্পে আনতে। সরকারের কাছে সে জন্য আবেদনও করা হয়েছে। অপেক্ষা এখন কেবল সবুজসংকেতের। ওয়ানডের প্রাথমিক দলে ডাক পাওয়া ২৪ ক্রিকেটারের সবাই পরপর দুটি করোনা পরীক্ষায় নেগেটিভ হয়েছেন। তাঁদের অনেকেই হোটেলে উঠে গেছেন। আজ অনুশীলনের পর পুরো দলেরই হোটেলে ওঠার কথা। টেস্ট দলের কয়েকজন ক্রিকেটারও আছেন একাডেমিতে। তাঁরা হোটেলে উঠবেন আরও পরে। তত দিন একাডেমিতে থেকেই নিজেদের মধ্যে অনুশীলন চালিয়ে যাবেন এই ক্রিকেটাররা।

About admin

Check Also

সাকিবের প্রশ্ন, ‘ব্যাটিং কোচের নাম কী রে?

  মাত্রই চট্টগ্রামের জহুর আহমেদ চৌধুরী স্টেডিয়ামের নেটে এলেন সাকিব আল হাসান। গার্ড নেওয়ার জন্য …

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *